ঢাকারবিবার , ৫ সেপ্টেম্বর ২০২১
  1. ইসলাম
  2. ছোট গল্প
  3. বই
  4. বিজ্ঞান-ও-প্রযুক্তি
  5. বিনোদন
  6. বিশ্বকোষ
  7. ব্যবসা
  8. ভিডিও
  9. ভ্রমণ
  10. মার্কেটিং
  11. মোটিভেশনাল স্পিচ
  12. স্বাস্থ্য বিষয়ক
আজকের সর্বশেষ সবখবর

বিক্রয় বৃদ্ধি করতে ইমোশনাল মার্কেটিং কৌশল জেনে নিন

প্রতিবেদক
Yeasin Ahmad
সেপ্টেম্বর ৫, ২০২১ ৫:৫৪ অপরাহ্ণ
Link Copied!

ব্যবসায়ে ইমোশনাল মার্কেটিং করে বিক্রি বৃদ্ধি করুন

মানুষ মানেই ইমোশন থাকবে। ইমোশন মার্কেটিং অনেকটা সহজ যদি সঠিক জায়গায় আগুন ধরানো যায়।কাস্টমাররা কোন জিনিস কিনার সময় বিবেক থেকে আবেগকে বেশি প্রধান্য দেয়। আর এই আবেগকে পুঁজি করে কোম্পানিগুলো তাদের বিজ্ঞাপন সাজায়। ইংরেজিতে কথা আছে, (Story Sell) গল্প সেল হয়। কাস্টমারকে শুধু ভালো জিনিস আর আবেগ দিয়ে বেশিদিন ধরে রাখা যায় না। ইমোশনালি কিছু দিতে হবে সারাজীবন রাখার জন্য। বর্তমানে প্রতিযোগিতা অনেক বেশি, তাই মার্কেটে টিকে থাকতে হলে ক্রেতার সাইকোলজি বুঝাটা খুব গুরুত্বপূর্ণ। প্রতিটা সিদ্ধান্ত যা আপনার কাস্টোমার নিয়ে থাকে তার সব কিছুর পিছনেই রয়েছে সচেতন এবং অবচেতন ইমোশনের ফল। বাঙালী জাতি হিসেবে একটু আধটু নয় বেশ বড় ধরনের ইমোশনাল আমরা। আর যাই হোক সহজে বিশ্বাস যোগ্যতার কারনে ইমোশন ব্যাপারটা আমাদের মধ্যে খুব সহজে প্রভাব বিস্তার করে। আর সেটাকে একটু দক্ষতার সাথে কাজে লাগাতে পারলে মার্কেটিংয়ে সফলতা পাওয়া খুব কঠিন কিছু নয়। তবে অবশ্যই কাজটি নির্ভুল হওয়া চাই। সেই সাথে সাবধানতা ও দক্ষতার সাথে করতে হবে কাজটি। আজকে আপনাদের সাথে কিছু ইমোশন মার্কেটিং টিপস নিয়ে আলোচনা করা হবে যা আপনার বিক্রি বৃদ্ধির জন্য সহায়ক হবে।

১. ইমোশনাল বিজ্ঞাপন তৈরি করুনঃ
কাজলের ভাত বিক্রি(বাংলালিংক) , মাঝির বেটার শিক্ষা(বিজিএমইএ), ইয়োর কান্ট্রি বিল্ডিং মাই মাই কান্টির সিমেন্ট, (ক্রাউন সিমেন্ট), আমি যখন জিতে যাই জিতে যায় মা (ফ্রেস ফুলক্রিম মিল্ক পাউডার), আমরা পৃথিবীটাকে জানতে চাই, পড়ালেখা করে বড় মানুষ হতে চাই (গুডলাক বলপেন), আব্বা হেলিকপ্টার কিনে দিবে (মাইক্যাশ), খেটে খাওয়া দু হাত আর দুপা (ভ্যাসলিন) এমন অসংখ্য ইমোশনাল বিজ্ঞাপন শুধু মাত্র মানুষের ইমোশনকে কাজে লাগিয়ে মার্কেট শেয়ার দখল করে চলেছে। ইমোশনকে কাজে লাগিয়ে আপনি ক্রেতার গ্যাপ পার্টনার হতে পারলে সফলতা পাওয়ার রাস্তাটা সহজ হয়ে যাবে।

২.পরোপকারের ব্যাপার তুলে ধরুনঃ
আপনার অনলাইন বিজনেসের অন্যতম সেরা একটা স্ট্রেটেজি হলো “পরোপকারের” মাধ্যমে কাস্টোমারের বিশ্বাস যোগ্যতা অথবা মন জয় করে নেয়া। খেয়াল করে থাকবেন অনেক জায়াগ্য, দেশে বিদেশে, এরকম অফার দেয়া হয়ে থাকে, আপনি যদি মিনিমাম এতো টাকার কো প্রোডাক্ট কিনেন তাহলে লাভের একটা অংশ বঞ্চিত মানুষের মাঝে দান করা হবে। রবি কোম্পানিতে এরকম একটা অফার দিয়েছিলো, সর্বনিম্ন এতো টাকা রিচার্জ করলে আপনার টাকার একটা অংশ পথশিশুর ঈদের জামা কাপড় দানে ব্যায় করা হবে।এখানে আপনি আপনার বিজনেস অনুযায়ী, প্রোডাক্ট, ব্র্যান্ড ইত্যাদি অনুযায়ী বিভিন্ন অফার সেট করে আপ্লাই করে দেখতে পারেন।

৩. রিলেজিয়াস ইমোশন তৈরি করুনঃ
আপনি ক্রেতার কাছে আপনার সফলতার চেয়ে প্ররিশ্রমী ও উদ্যোমী মানুষ হিসেবে পরিচিত পারলে গ্রহনযোগ্যতা বাড়বে। আপনি যদি সত্যিকার অর্থেই আপনাকে উপস্থাপন করতে পারেন সেক্ষেত্রে সেলস নিয়ে আপনাকে চিন্তা করতে হবে না। সমস্ত বিশ্বের প্রেক্ষাপটে ধর্মীয় অনুভুতি সেলসের ক্ষেত্রে বেশ বড় একটা প্রভাব বিস্তার করে আছে। এ্যারোমেটিক বিউটি সোপের কথা মনে আছে কি? ‍শুধুমাত্র ১০০ ভাগ হালাল সোপ কথাটি ব্যবহার করে মার্কেটের অধিকাংশ শেয়ার দখল করেছিল কোম্পানীটি। এবং সেটি সম্ভব হয়েছিল শুধুমাত্র রিলেজিয়াস ইমোশন থেকে।

৪. লোভকে ব্যবহার করুনঃ
লোভ? হ্যা লোভ। লোভ ঠিক আছে, লোভ কাজ করে, লোভ ভালো, জীবনের জন্য লোভ, টাকার জণ্য লোভ, ভালোবাসার জন্য লোভ। এখনো যদি পরিষ্কার না হয়ে থাকেন আরেকটু ক্লিয়ার করি আমরা যখন কোন যায়গায় “ফ্রি” শব্দটা দেখি আমরা অন্য সব অফারের থেকে এই “ফ্রি” অফারে বেশি আগ্রহী হই না? আমার কিন্তু মনে হয় হই। আর এই যে “ফ্রি” দেখার পর যে আমাদের আগ্রহ এটা কিন্তু “লোভের” ইমোশন এর মধ্যেই পরে। তাই সব জায়গায় লোভ করা যে খারাপ সেটা হয়তো বলা যাচ্ছে না।

৫.ভালবাসার দিকগুলোও বিবেচনায় রাখুনঃ
মানবিক, স্পর্শকাতর ও ভালবাসার দিকগুলোও বিবেচনায় রাখতে হবে আপনাকে। এটা একটি সফট কর্ণার। ক্রেতার সাথে পরিচয়ের প্রথম দিকে পারলে তার পরিবার সম্পর্কে জেনে নিন। নিয়মিত খোঁজ খবর করুন তাদের সুস্থ্যতা, পড়াশুনা সহ অন্যান্য ইতিবাচক দিকগুলো কেমন চলছে সে বিষয়ে। কোন সমস্যায় থাকলে সাহায্য করার চেষ্টা করুন একান্ত না পারলে সমাধানযোগ্য পরামর্শ দিয়ে সহযোগীতা করুন। তাকে আশ্বস্ত করুন আপনি তার পাশে আছেন যে কোন বিপদে।

উপংহারঃ
অনেক কোম্পানি এর মধ্যে অনেক স্ট্রাটেজি নিয়ে থাকে, এর থেকেই বুঝা যায় ইমোশনাল মার্কেটিং সব জায়গাতেই আছে, কেউ হয়তো বুঝে করছে, কেউ না বুঝে, তবে বুঝে শুনে করলে ফলাফল আরো ভালো পাওয়া যাবে।

Facebook Comments