ঢাকামঙ্গলবার , ২৪ আগস্ট ২০২১
  1. ইসলাম
  2. ছোট গল্প
  3. বই
  4. বিজ্ঞান-ও-প্রযুক্তি
  5. বিনোদন
  6. বিশ্বকোষ
  7. ব্যবসা
  8. ভিডিও
  9. ভ্রমণ
  10. মার্কেটিং
  11. মোটিভেশনাল স্পিচ
  12. স্বাস্থ্য বিষয়ক
আজকের সর্বশেষ সবখবর

ওয়েবসাইট কি? কেন প্রয়োজন? কিভাবে কাজ করে

প্রতিবেদক
Yeasin Ahmad
আগস্ট ২৪, ২০২১ ১:৪২ অপরাহ্ণ
Link Copied!

বর্তমান বিশ্বে আধুনিক শিক্ষা থেকে শুরু করে ব্যবসা, চিকিৎসা, অর্থনীতি, রাজনীতি, সংস্কৃতি প্রতিটি ক্ষেত্রেই ভূমিকা তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি । তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি যাত্রা শুরু হয়েছিল নিউমেরিক (Numeric) ক্যালকুলেশন, ডাটা অ্যানালাইসিস ও তথ্য সংরক্ষণের প্রয়োজন থেকে। কিন্তু বর্তমানে এটা এমন এক অবস্থায় এসে উপস্থিত হয়েছে যে মানব সভ্যতার কর্মযজ্ঞের প্রায় প্রতিটি ক্ষেত্রেই এখন এই প্রযুক্তির অবিচ্ছেদ্য ব্যবহার হচ্ছে। বর্তমানে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তির ব্যাপকতায় এর সাথে আমরা সবাই কম- বেশি পরিচিত।

যা ঠিক আজ থেকে কয়েক বছর আগেও এমনটা ছিল না। ঠিক তেমন দুটি শব্দ হলো “ইন্টারনেট এবং ওয়েবসাইট”

সহজ ভাষায় ইন্টারনেট (Internet) কি?

আমরা অনেকে ইন্টারনেট বলতে বুঝি ফেইসবুকিং করা, অনলাইনে ভিডিও দেখা, অনলাইনে কেনাকাটা করা ইত্যাদি। কিন্তু আসলেই ইন্টারনেট বলতে কি তা বুঝায়? মোটেও না সহজ ভাষায় ইন্টারনেট হলো, মূলত বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্তে থাকা অগণিত কম্পিউটার ও ডিভাইস সমূহের মধ্যে আন্তঃসংযুক্ত একটি নেটওয়ার্ক। অর্থাৎ সারা পৃথিবী জুড়ে ব্যাপকভাবে পরস্পরের সাথে সংযুক্ত অনেকগুলো কম্পিউটার ও ডিভাইস নেটওয়ার্কের সমষ্টি হলো ইন্টারনেট। ইন্টারনেট সকল ধরনের জনসাধারণের জন্য উন্মুক্ত একটি নেটওয়ার্কিং সিস্টেম।

ওয়েবসাইট (Website)কি?

ওয়েবসাইট হচ্ছে কোন ওয়েব সার্ভারে রাখা ওয়েব পৃষ্ঠা, ছবি, অডিও, ভিডিও ও অন্যান্য ডিজিটাল তথ্যের সমষ্টি। যা ইন্টারনেট সংযোগের মাধ্যমে অ্যাক্সেস করা যায়। প্রত্যেকটি ওয়েবসাইটের একটি ইউনিক নাম থাকে। এছাড়াও আমরা এভাবেও বলতে পারি, একই ডোমেইন অধীনে একাধিক ওয়েবপেইজের সমষ্টিকে ওয়েবসাইট বলে। আরেকটু সহজ ভাষায় বলতে গেলে ওয়েবসাইট হল ইন্টারনেট জগতে আপনার একটি ব্যবসা, প্রতিষ্ঠান, বা আপনার কোন শখ, বা কোন জরুরী বিষয় সারা বিশ্বের লোকদের মাঝে তুলে ধরার একটি অন্যতম মাধ্যম।

ওয়েবসাইট শুধু কিছু যন্ত্র বা ডিভাইসের সংযোগ দ্বারা তৈরি সর্ববৃহৎ নেটওয়ার্কই না, বরং ইন্টারনেট এখন পৃথিবীর সর্ববৃহৎ তথ্যভান্ডার, অন্যতম জ্ঞানের উৎস ও যোগাযোগের অন্যতম মাধ্যমও বটে। আর এই সুবিশাল তথ্যভান্ডারের গুরুত্বপূর্ণ উপাদান হচ্ছে ওয়েবসাইট।

এখন প্রশ্ন হচ্ছে, একটি ওয়েবসাইটের আমার কি কোন প্রয়োজন আছে?

এর জন্য প্রথমেই বুঝতে হবে একটি ওয়েবসাইট আসলে কি করতে পারে আপনার জন্য? এই ভাবনা সহজ করার আপনার সামনে দুইটি পয়েন্ট উল্লেখ করছি, যা আপনাকে বুঝতে সাহায্য করবে একটি ওয়েবসাইট কেন আপনার থাকা প্রয়োজন।

প্রথমত আপনার নিজস্ব একটি ওয়েবসাইট যদি থাকে তবে আপনিও সেই মহাসাগরের একটি অংশে পরিণত হবেন। আপনার নিজস্ব অস্তিত্ব-পরিচয়-ঠিকানা তৈরি হবে। নতুবা আপনার অবস্থান এই নেটওর্য়াকের বাহিরে। বাস্তব পৃথিবীতে একজন ঠিকানা পরিচয়হীন মানুষ যেমন, এই ভার্চুয়াল জগতেও আপনি তেমনই একজন ঠিকানা পরিচয়হীন মানুষ (বা প্রতিষ্ঠান)।

একটি দোকানের কথা চিন্তা করুন। দোকানটি সেখানে আছে, পণ্য সাজানো আছে, দোকানীও দাঁড়িয়ে আছেন পণ্য বিক্রয় করবার জন্য। কিন্তু দোকানটির কোন সাইনবোর্ড নেই, কোন নাম নেই, ঠিকানা লেখা নেই, যোগাযোগের কোন মাধ্যম উল্লেখ করা নেই, বিজনেস কার্ড নেই। এমন অবস্থায় দোকানি এবং কাস্টমারকে ঠিক কি কি সমস্যার মুখোমুখি হতে হবে?

একটি ওয়েবসাইট কেন আপনার প্রয়োজন?

প্রথমত, ওয়েবসাইট আপনার বা আপনার ব্যবসার অনলাইন পরিচয় ও ঠিকানা। একজন মানুষ, বাড়ি বা ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের একটি ঠিকানা থাকে, তা না হলে তা বিশ্বাসযোগ্যতা হারায়। ওয়েবসাইট ও এতে প্রদত্ত তথ্য-ও আপনার অস্তিত্ব ও বিশ্বাসযোগ্যতা তুলে ধরে। একটি ওয়েবসাইটের মাধ্যমে খুব কম খরচে আপনার ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠানের প্রসার করতে পারেন। আপনি বা আপনার প্রতিষ্ঠান গ্রাহকে কিভাবে সার্ভিস প্রদান করেন,আপনার প্রতিষ্ঠানের সেবার মান কতটুকু মানসম্পন্ন ইত্যাদি সম্পর্কে একটি স্বচ্ছ ধারনা দিতে পারে একটি ওয়েবসাইট।

একটি মানসম্মত ওয়েবসাইট আপণাকে যে সুবিধাগুলো দিতে পারে?

১. আপনি যদি গ্রাহকদের সাথে সার্বক্ষণিক যোগাযোগ করতে চান, এবং তথ্য আদান-প্রদানের মাধ্যম হিসেবে ওয়েবসাইট অপ্রতিদ্বন্দ্বী।

২.সপ্তাহের ৭ দিন ২৪ ঘন্টা ওয়েবসাইট ক্লান্তিহীন ভাবে তার সার্ভিস দিতে থাকে। যা একজন মানুষের পক্ষে সম্ভব না। আপনার প্রতিষ্ঠানের জন্য এমন কর্মঠ ও ক্লান্তিহীন কর্মী আর কোথাও পাবেন না।

৩. সমগ্র পৃথিবীর বুকে আপনার প্রতিষ্ঠানের সেবা এবং গুনগতমান ছড়িয়ে দিতে চাইলে, ওয়েবসাইটের বিকল্প হিসেবে কিছু পাবেন না।

৪. আধুনিক ও তথ্য যোগাযোগ প্রযুক্তির যুগে আপনার কোম্পানীর একটি ওয়েবসাইট আপনার সার্ভিসকে আরো স্মার্ট, মান সম্পন্ন করে তুলবে, আপনার ইমেজ ও বিশ্বাসযোগ্যতা গড়ে তুলতে সহায়ক ভূমিকা পালন করবে।

৫. একটি ওয়েবসাইট আপনার প্রতিষ্ঠানের জন্য একটি ব্র্যান্ড-এ পরিণত হয়। আপনার ওয়েবসাইট যদি মানসম্পন্ন এবং তথ্যবহুল হয় তাহলে আপনার ওয়েবসাইট গ্রাহকের কাছে বিশ্বাসযোগ্যতা অনেক বেশি বৃদ্ধি পাবে। যা আপনার প্রতিষ্ঠানের জন্য আশির্বাদ স্বরুপ।

৬.বর্তমানে সবাই অনলাইন কার্যক্রমের দিকে ঝুকে পড়ছে, মাজিক আদান-প্রদান বর্তমানে জনপ্রিয় হয়ে উঠছে। অতএব অনলাইন জগতে আপনার বা আপনার প্রতিষ্ঠানের উপস্থিতি থাকা প্রচার-প্রসারের জন্য অত্যন্ত জরুরী। একটি চমৎকার ওয়েবসাইট এসব ক্ষেত্রে আপনাকে অনেকটাই এগিয়ে রাখবে।

৭. আপনি অনলাইনে উপার্জন করতে চান, ওয়েবসাইটের মাধ্যমে অনলাইনে নানাবিধ উপায়ে আয় করা সম্ভব। অনলাইন আয়ের ক্ষেত্রে নিজস্ব একটি ওয়েবসাইট অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ হয়ে উঠতে পারে।

৮. প্রয়োজনীয় ওয়েব অ্যাপলিকেশনের মাধ্যমে আপনার প্রতিষ্ঠানের কর্মকান্ড আপনি স্বয়ংক্রিয় ব্যবস্থাপনার দিকে এগিয়ে নিতে পারেন। যেমন অনলাইনে পণ্যের কেনা-বেচা, অনলাইন পয়েন্ট-অফ-সেলস, অ্যাকাউন্টিং -ইত্যাদি সফটওয়্যার বা অ্যাপলিকেশনের ব্যবহার।

একটি ওয়েবসাইটের সুবিধা গুলো মোটামোটি জানা গেল। এখন আপনি যদি একজন ব্যবসায়ী, ফটোগ্রাফার, শিক্ষক,কবি,সাহিত্যিক,লেখক বা যেকোন পেশার কেউ হোন না কেন আপনার কর্মপরিধি সবার মাঝে ছড়িয়ে দেয়ার জন্য ওয়েবসাইট হতে পারে সর্বাধুনিক, সহজ, দৃষ্টিনন্দন অথচ সাশ্রয়ী মাধ্যম।

কি কি ধরণের ওয়েবসাইট হতে পারে?

-প্রোমো ওয়েব সাইট বা স্টাটিক ওয়েবসাইট।
-সিস্টেমেটিক বা ডাইনামিক ওয়েবসাইট।
-ব্যক্তিগত ওয়েবসাইট।
-প্রতিষ্ঠানের পরিচিতিমূলক ওয়েবসাইট
– জব পোর্টাল।
-ধর্মীয় ওয়েবসাইট।
-বিনোদনমূলক ও যোগাযোগের ওয়েবসাইট।
-টিউটোরিয়াল ওয়েবসাইট।
-কলেজ ওয়েবসাইট।
-অফিস ব্যবস্থাপনা ওয়েবসাইট।
-প্রশ্নত্তর ওয়েবসাইট।
-অনলাইন ডিরেক্টরী।

ওয়েবসাইটের সংখ্যা গুনে শেষ করা যাবেনা। প্রতিদিন অসংখ্য ওয়েবসাইট তৈরি হচ্ছে নতুন নতুন আইডিয়া নিয়ে। ওয়েবসাইটের কোন বাঁধাধরা শ্রেণিবিভাগ বা ধরণ নেই। প্রাতিষ্ঠানিক, ব্যক্তিগত, শিক্ষা, চিকিৎসা, গবেষণা ইত্যাদি কাজে ওয়েবসাইট অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ হয়ে উঠেছে। বাংলাদেশে সহ বিশ্বের সকল দেশে ওয়েবসাইট এর চাহিদা বাড়ছে। প্রয়োজনের ধরণ, সেবা বা অন্যান্য বিষয়ের উপরে নির্ভর করে সাধারণত ওয়েবসাইট তৈরি করা হয়ে থাকে। ইন্টারনেট পুরো বিশ্বকে নিয়ে এসেছে হাতের মুঠোয় একটি ওয়েবসাইট আপনাকে এবং আপনার প্রতিষ্ঠানকে দাড় করিয়ে দিতে সক্ষম বিশ্বের খোলা দরবারে।

Facebook Comments