সেল বাড়াবে কিছু ফেসবুক মার্কেটিং টিপস

আকর্ষণীয় ভাবে প্রোডাক্ট এর ছবি তৈরি করুন

ভালো রেজুলেশন, ভালো লাইটিং, ক্রিয়েটিভিটি ইত্যাদি ব্যবহার করে ছবি তুলুন। যেমন ড্রেসের ক্ষেত্রে অনেকে ই একটা ডামি পুতুলে ছবি দেয়, অথবা কিছু কমন মডেলের ছবি দেয় যা ফেসবুকের প্রায় সব পেজেই দেখা যায়।
আপনাকে চেস্টা করতে হবে অন্যরকম কিছু করতে, যদি সম্ভব হয় ইন্ডিয়ান মডেল অথবা কমন সব মডেলের ছবি ব্যবহার না করে নিজে মডেল নিয়োগ দিয়ে ফটোগ্রাফি করুন সেটা সম্ভব না হলে আরো অনেক ক্রিয়েটিভ উপায় আছে প্রোডাক্ট এর ছবি তোলার সেগুলা ফলো করুন, আপনার ড্রেস একটা হ্যাঙ্গারে ঝুলিয়ে সাদা একটা ব্যাকগ্রাউন্ড এ রেখে ছবি তুলে দেখুন, অনেক ভালো লাগবে আর গুগুল তো আছেই, সেখান থেকে আরো আইডিয়া নেন।

অবশ্যই Call to action বাটন ব্যাবহার করুন

আপনার পোস্টের মধ্যে Call to action বাটন না থাকলে ক্লাইন্টের জন্য কষ্ট হয়ে যায় আপনার সাথে যোগাযোগ করা, সবাই কমেন্টে আগ্রহি হয় না অথবা কমেন্টে আপনি ও অনেক কিছু জানাতে আরামদায়ক বোধ করেন না তাই পোস্টে Call to action বাটন ব্যবহার করুন, সেটা Send message বাটন হতে পারে সেখানে ক্লিক করে ক্লাইন্ট আপনার সাথে ইনবক্সে কথা বলবে।

প্রোডাক্ট ভিডিও আপলোড করেন

সোশ্যাল মিডিয়াতে এখন মানুষ ভিডিও দেখতে পছন্দ করে তাই প্রোডাক্ট এর ছবির পাশাপাশি ভিডিও আপলোড করেন, এর জন্য আলাদা কিছু করা লাগবে না আপনার, প্রোডাক্ট ফটোগ্রাফির সাথে ভিডিও টা ও করে ফেলেন, কিছু এডিট প্রয়োজন হলে মোবাইল ই সেটা এডিটিং করতে পারবেন, অনেক এপ্স আছে এখন, তবে ভিডিও ফেসবুকে সরাসরি আপলোড করবেন, ইউটিউবের লিঙ্ক অথবা অন্য ওয়েবসাইটে আপলোড করে সেটার লিঙ্ক দিবেন না, সেগুলা ফেসবুক প্রোমট করতে চায় না।

নতুন প্রোডাক্ট সম্পর্কে জানান

আপনি কোন নতুন প্রোডাক্ট অথবা সার্ভিস শুরু করলে সেটা সম্পর্কে আপনার ক্রেতাদের আপডেট জানান, এটা অনেকটা সফটওয়্যার অথবা উইন্ডোজ আপডেটের মত, আপনি যেহেতু বিজনেস করছেন তাই এটাই স্বাভাবিক যে আপনি নতুন প্রোডাক্ট অথবা সার্ভিস নিয়ে আসবেন, সেই সম্পর্কে আপনার পেজে পোস্ট দিন, নতুন প্রোডাক্ট এর পোস্ট দিয়ে ই সেটা এখন ই কেনা লাগবে এভাবে না।
প্রথমে সেই প্রোডাক্ট সম্পর্কে সবাইকে পরিচিত করান, আপনার উদ্দেশ্য বলেন, প্রোডাক্ট এর উপকারিতা সম্পর্কে জানান, দুই-তিন পর আবার পোস্ট দিয়ে সেল অফার দিন।

মুখস্ত সময় অনুযায়ী পোস্ট দিবেন না

অনেকেই হয়তো শুনেছেন দিনে ৩বার পোস্ট দিবেন সকাল ৯টায় একটা, দুপুর ২টায় একটা আর রাত ৯টায় একটা, এটা আমিও ফলো করতাম একটা সময়, এরকম মুখস্ত সময় অনুযায়ী পোস্ট না দিলে ই ভালো, আপনার পেজের ইনসাইটে যান, সেখানে দেখুন আপনার পোস্টগুলা কোন সময়ে দর্শক বেশি দেখেছে এরপর সেভাবে একটা টাইম টেবিল নির্ধারণ করুন। সব থেকে গুরুত্বপূর্ণ পোস্টগুলা পোস্ট করুন যখন আপনার দর্শক সব থেকে বেশি থাকে।
ছুটির দিনে, সকালে, বিকালে, রাতে যে কাজ করবে না সেটা আমি বলছি না তবে এটা নির্ভর করে আপনার প্রোডাক্ট এর উপর, আপনার ক্রেতার উপর।

আপনার ক্রেতা বুঝার চেস্টা করেন

এখানে ও আপনার আপনার পেজ ইনসাইটে যেতে হবে দেখতে হবে কারা আপনার পেজে আসছে, তাদের বয়স কেমন, তারা জেন্ডার কি, তারা কোন এলাকায় থাকে এখান থেকে ই আপনাকে সিদ্ধান্ত নিতে হবে, আপনি যদি নিজের অ্যাড নিজে দিয়ে থাকেন তাহলে এগুলা দেখে শুনে বুঝে অডিয়েন্স টারগেটিং করেন, অন্য কেউ অ্যাড দিলে তাকে বলে দেন আপনার কাস্টোমার কারা। আপনি যদি মেয়েদের গলার লকেট বিক্রি করেন তার মানে এই না যে সেটা শুধু মেয়েরাই কিনবে, গিফট আইটেম হিসেবে সেটা ছেলেরা ও কিনতে পারে।

আপনার সাকসেস জানান সবাইকে

আপনি সফল হচ্ছেন, ক্রেতারা আপনার প্রোডাক্ট কিনে খুশি সেটা জানান সবাইকে, অনেকেই পেজে রিভিউ দেয়, সেই রিভিউ কি সবার চোখে পড়ে,সেগুলা আপনার পেজের টাইমলাইনে শেয়ার করুন, রিভিউগুলা সুন্দর করে গ্রাফিক ডিজাইন করে পেজে পোস্ট করতে পারেন, তবে অবশ্যই ক্রেতার অনুমতি নিয়ে।
আপনার যদি সার্ভিস ভিত্তিক বিজনেস হয় তাহলে সেটার বিভিন্ন সাফল্য তুলে ধরতে পারেন, কোন এ্যাওয়ার্ড পেলে সবার সাথে শেয়ার করতে পারেন।

প্রতিযোগিতা অথবা Giveaway অফার করতে পারেন

প্রতিযোগিতা অথবা Giveaway এর জন্য কিছু নিয়ম লিখে দিতে পারেন, সেই অনুযায়ী যারা অংশগ্রহন করবে তারা কিছু পুরস্কার পাবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *