ঢাকাবৃহস্পতিবার , ৫ আগস্ট ২০২১
  1. ইসলাম
  2. ছোট গল্প
  3. বই
  4. বিজ্ঞান-ও-প্রযুক্তি
  5. বিনোদন
  6. বিশ্বকোষ
  7. ব্যবসা
  8. ভিডিও
  9. ভ্রমণ
  10. মার্কেটিং
  11. মোটিভেশনাল স্পিচ
  12. স্বাস্থ্য বিষয়ক
আজকের সর্বশেষ সবখবর

হোটেল বুকিং এর ক্ষেত্রে সচেতনতা ও কিছু পরামর্শ জেনে নিন

প্রতিবেদক
Yeasin Ahmad
আগস্ট ৫, ২০২১ ৬:৩৯ অপরাহ্ণ
Link Copied!

হোটেল বুকিং এর কিছু পরামর্শ ও সচেতনতা

জীবন গতিশীল, জীবনে প্রয়োজনে আমাদের ছুটতে হয় দেশ থেকে দেশান্তরে, কিন্তু দিন শেষে মানুষ ফিরে আসে তার আপন নীড়ে, একটু প্রশান্তি একটু বিশ্রামের জন্য৷ তেমনি নানা প্রয়োজনে হুটহাট ব্যবসায়িক কাজে কিংবা কোথাও ঘুরতে গেলে বিশ্রাম ও রাত্রি যাপনের জন্য অনেকক্ষেত্রে হোটেলকে বেছে নিতে হয়। প্রত্যেকে তার সামর্থ্য অনুযায়ী হোটেল বেছে নেয়। পচ্ছন্দের তালিকায় থাকে বিলাসবহুল হোটেল থেকে অতি নিম্ন শ্রেনীর৷ প্রত্যেকেই ব্যক্তিগত চাহিদা ও আর্থিক সামর্থ্য অনুযায়ী হোটেল ঠিক করেন। হোটেলে ওঠার পর আমাদের বিভিন্ন রকম অপ্রত্যাশিত ঘটনার মুখোমুখি হতে হয়। এসব ঘটনার আমাদের মন-মানসিকতাকে বিষন্ন ও বিপর্যস্ত করে তোলে। আর তাই একা একা ভ্রমণের ক্ষেত্রে হোটেলে রাত্রিযাপন করতে হলে নিরাপত্তার খাতিরে সচেতন থেকে ছোটখাট অনেক বিষয়ে চোখ কান খোলা রাখতে হয়। সামান্য বিষয়ের উপর সচেতনতা আপনাকে অনেক অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনার হাত থেকে বাঁচিয়ে দেবে।

১.হোটেলে নিরাপত্তা ব্যবস্থাপনাকে গুরুত্ব দিন।

হোটেলে থাকলে প্রথমে দেখে নিন সেই হোটেলের সিকিউরিটি ম্যানেজমেন্ট কেমন? কারন আপনাকে যখন একা হোটেলে রাত্রিযাপন করতে হবে তখন অবশ্যই নিরাপত্তা ব্যবস্থাকে গুরুত্বের সাথে দেখতে হবে। জানতে চেষ্টা করুন আপনি যে হোটেলে আছেন তার নিরাপত্তাকর্মীরা সর্বদা তৎপর রয়েছে কিনা। বিলাসবহুল হোটেল নয় বরং নিরাপত্তাকে গুরুত্ব দিন নয়তো আপনি মুখোমুখি হতে পারেন খারাপ কোন ঘটনার সাক্ষী।

২. যদি সম্ভব হয় নিচতলায় কক্ষ ঠিক করবেন না

এটা খুব সাধারন ব্যাপার যে যদি হোটেল ম্যানেজমেন্ট সিকিউরিটি যদি দুর্বল হয় তাহলে যে কোন সন্তাসী আক্রমনে বেশি ক্ষতিগ্রস্থ হবে নিচতলার লোকেরা তাই তাই নিরাপত্তার প্রশ্নে নিচতলার কক্ষ এড়িয়ে চলাই উচিত।

৩. বেড নির্বাচন করার কৌশলতা অবলম্বন করুন

নিরাপত্তার ব্যাপারে যদি নিশ্চিন্ত হতে না পারেন তবে একটু বাড়তি সতর্কতা হিসেবে দুই বিছানার রুম ভাড়া নিতে পারেন। এতে কেউ আপনার সম্পর্কে খোঁজখবর নিলে আপনার সাথে সঙ্গী আছে ভেবে বিভ্রান্ত হবে।

৪.হোটেলে থাকাকালীন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম পরিহার করুন

হোটেলে থাকাকালীন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যামে লোকেশান ট্যাগ থেকে বিরত থাকুন। আপনি কোথায়, কোন হোটেলে আছেন এসব তথ্য সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রকাশ করবেন না এতে করে আপনার ক্ষতি করতে চায় এমন লোকেরা সেই সুযোগ নিতে পারে।

৫. নিজের নাম গোপন রাখুন
আমরা যখন হোটেলে বাইরে যাই অপ্রয়োজনে অনেক সময় অপরিচিত কাউকে হোটেলের নাম বলে দেই এই কাজটি থেকে বিরত থাকুন। এমনি কি কোন যানবাহন করে হোটেলে ফিরতে গেলে হোটেলের নাম গোপন করার রাখুন। যদি সম্ভব হয় হোটের আশে পাশে কম দুরত্বের কোথাও গেলে হেঁটে হেঁটে হোটেলে ফিরুন।

৬. রুম নম্বর গোপন রাখতে বলুন
যদি কোন প্রয়োজনে আপনি হোটেল থেকে বাইরে বের হোন তখন হোটেল ম্যানেজারকে চাবি দেওয়ার সময় সামান্য কিছু সতর্কতা অবলম্বন করুন যেমন;

-আশেপাশে অপরিচিত কেউ থাকলে নীচু স্বরে রুমের নাম্বার বলুন যেন অন্য কেউ শুনতে না পারে।

-হোটেল ম্যানেজারকে বলে রাখুন যেন আপনার কক্ষ নম্বরের কথা গোপন রাখে।

৭. জিনিসপত্র নিজ দায়িত্বে গচ্ছিত রাখুন
হোটেলে ওঠার পর আপনার জিনিসপত্র নিজ দায়িত্বে গচ্ছিত রাখুন। হোটেলের সিকিউরিটি যখন রুম পরিষ্কার করতে আসলে তাদের প্রতি সতর্ক দৃষ্টি রাখুন। আপনার কাছে যদি দামী বা কোন গুরুত্বপূর্ণ জিনিসপত্র থাকে তাহলে হোটেলের কাউকে বুঝতে দিবেন না।

Facebook Comments